নখকুনি নিরাময়ের উপায় ৫টি ঘরোয়া

নখকুনির যন্ত্রণা সাধারণত সকলকেই একবার বা একাধিকবার ভোগ করতে হয়| আমাদের হাতের ও পায়ের নখে ফাঙ্গাস জমে এই ধরণের সমস্যা দেখা দেয়| হাত ও পায়ের ঠিক মত যত্ন না নিলে বা পরিষ্কার না রাখলে এই ধরণের সমস্যা হতে পারে| সারাদিন আমাদের হাত ও পা নানা ধুলো-বালি-জল-কাদা, মশলা, সাবান কত কিছুরই না সংস্পর্শে আসে| ঠিক মত যদি যত্ন না নেওয়া হয় তাহলেই বিপদ| নখকুনি অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক একটি সমস্যা তাই এটি সারানোর বা এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তির কতগুলি ঘরোয়া উপায় আজ আপনাদের জানাবো|

নখকুনি আসলে কি?

নখকুনি আপনার হাতের ও পায়ের নখে ও নখের আশেপাশে চামড়ার অংশে হয়ে থাকে| এর ফলে নখের চারপাশ লাল হয়ে ফুলে ওঠে| অত্যন্ত যন্ত্রণা হয়| এছাড়া এর ফলে নখগুলি মোটা হয়ে যায়| নখের ভেতর ব্যথা হয়, কখনো নখ হলুদ বা কালো রঙের হয়ে যায়| এই ধরণের রোগ জিনগত কারণে হতে পারে|

কীভাবে সারিয়ে তুলবেন?

হাতে পায়ের নখের যত্ন নেওয়ার সাথে সাথে নখকুনি সারানোর জন্য কিছু ঘরোয়া উপায় কাজে লাগাতে পারেন| দেখে নিন সেগুলি কি কি ও ঠিক কেমন ভাবে আপনি সেগুলি ব্যবহার করবেন|

১. নারকেল তেল

নারকেল তেল এই নখকুনি সারিয়ে তোলার সহজ ও কার্যকরী উপায়| নারকেল তেল সাধারণত আমাদের সবার ঘরেই থাকে| তাই আপনার যদি নখকুনি হয়ে থাকে তাহলে কীভাবে নারকেল তেল প্রয়োগ করবেন দেখে নিন|

পদ্ধতি

স্নান করার আগে বা রাতে শুতে যাওয়ার আগে আপনার হাতে ও পায়ের নখে ও তার চারপাশে ব্যথা হওয়া অংশে নারকেল তেল লাগান| ১৫- ২০ মিনিট পর হিমালয়া বা ওলে ফেস ওয়াশ দিয়ে ভালো করে আপনার হাত ও পায়ের নখ ও তার আশেপাশের অংশ ধুয়ে ফেলুন| এতে আপনি আরাম পাবেন ও খুব তাড়াতাড়ি যন্ত্রণা সেরে যাবে|

২. অলিভ অয়েল

অলিভ অয়েলও আপনার নখকুনি সারিয়ে তুলতে ও এর যন্ত্রণা কমাতে সাহায্য করে| এছাড়া নিয়মিত অলিভ অয়েল নখে ও তার চারপাশে লাগালে এই ধরনের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়|

উপকরণ

২ চামচ অলিভ অয়েল, ২ চামচ পাতিলেবুর রস।

পদ্ধতি

অলিভ অয়েল ও লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নখ ও তার আশেপাশের অংশে হালকা করে ম্যাসাজ করুন| অলিভ অয়েল ঠান্ডা হয় তাই এটি খুব তাড়াতাড়ি যন্ত্রনায় আরাম দেয়| দিনে ৩ থেকে ৪ বার অলিভ অয়েল লাগালে আপনি ভালো ফল পাবেন|

৩. বেকিং সোডা

বেকিং সোডা নখের যত্ন নিতে বা নখকুনি সরিয়ে তোলার ক্ষেত্রে খুব উপকারী একটি ঘরোয়া উপাদান|নখ ও তার চারপাশের যে কোনো রকম ইনফেকশন এই বেকিং সোডার ব্যবহারে খুব তাড়াতাড়ি সেরে ওঠে| দু ভাবে আপনি বেকিং সোডা ব্যবহার করতে পারেন নখকুনি সারাতে|

প্রথম পদ্ধতি

প্রথমে হালকা গরম জলে অল্প শ্যাম্পু মিশিয়ে হাত ও পায়ের নখ ধুয়ে নিন| একটি পরিষ্কার টাওয়াল দিয়ে হাত ও পায়ের পাতা ভালো করে মুছে নিন| এবার বেকিং সোডা ও জল মিশিয়ে পেস্ট মত বানিয়ে আপনার হাতে বা পায়ে যেখানে নখকুনি হয়েছে সেখানে লাগিয়ে রাখুন ১৫ -২০ মিনিট| এবার ঠান্ডা জলে হাত বা পা ধুয়ে ফেলুন| এই পদ্ধতিতে দিনে ৩-৪ বার বেকিং সোডা ব্যবহার করলে আপনি আরাম পাবেন|

দ্বিতীয় পদ্ধতি

প্রথমে যেখানে নখকুনি হয়েছে সেই অংশটি পরিষ্কার করে টাওয়াল দিয়ে মুছে নিন| এবার ঠান্ডা জলে ২-৩ চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে সেই জলে হাত বা পায়ের পাতা চুবিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট মত| এতেও আপনি আরাম পাবেন|

৪. অ্যাপল সিডার ভিনিগার

এই উপাদানটিও নখকুনি হলে তা সারিয়ে তোলে খুব সহজেই| এছাড়া এর নিয়মিত ব্যবহার আপনার হাত ও পায়ের নখকে সুরক্ষিত রাখে| বাজারে আপনি খুব সহজেই এই উপাদানটি পেয়ে যাবেন। না হলে অনলাইন আপনার মুশকিল আসান করবে|

উপকরণ

২ চামচ অ্যাপল সিডার ভিনিগার, ২ চামচ জল।

পদ্ধতি

অ্যাপল সিডার ভিনিগার ও জল মিশিয়ে আপনার ব্যথা হওয়া অংশে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন| এরপর ঠান্ডা জলে ধুয়ে শুকনো কাপড় দিয়ে ভালো করে মুছে নিন| প্রতিদিন ২-৩ বার ব্যবহার করুন যতদিন না নখকুনি পুরোপুরি সেরে যাচ্ছে|

৫. এপ্সাম লবণ

নখে হওয়া যেকোনো ধরনের সমস্যার ক্ষেত্রে এপ্সাম লবণ অত্যন্ত উপকারী|

উপকরণ

১ কাপ ভিনিগার, ১ কাপ এপ্সাম লবণ, ৬ কাপ গরম জল।

পদ্ধতি

ভিনিগার, এপ্সাম লবণ ও গরম জল মিশিয়ে নিন| গরম ভাব কিছুটা কমে আসলে তাতে হাত বা পা যেখানে নখকুনি হয়েছে তা চুবিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট| এরপর পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে নিন| দিনে দুবার এই পদ্ধতি ব্যবহার করলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি আরাম পেয়ে যাবেন নখকুনি থেকে|

নখকুনি এদের মধ্যে যে কোনো একটি উপাদানের ব্যবহারে সহজেই সেরে যাবে| তবে অনেক সময় অতিরিক্ত বেশি ব্যথা বা ফুলে যাওয়া বিপদজনক হতে পারে| সে ক্ষেত্রে কিন্তু চিকিৎসকের পরামর্শই জরুরী| তবে এই উপায়গুলি অবলম্বন যদি আপনি নিয়মিত ও সঠিক উপায়ে করেন সেক্ষেত্রে আপনি এই ধরনের সমস্যা খুব সহজেই এড়িয়ে চলতে পারবেন|

পায়ে হাজা থেকে মুক্তি মাত্র এক সপ্তাহে

পাইলসের ব্যাথার থেকে মুক্তির ঘরোয়া টিপস

অন্বেষা দত্ত লাহিড়ী

View Comments

Recent Posts

শিট মাস্ক ব্যবহার করার উপযুক্ত পদ্ধতি স্টেপ বাই স্টেপ

আমরা আমাদের ত্বক ভালো রাখার জন্য অনেক কিছুই ব্যবহার করে থাকি। সেগুলির মধ্যে অন্যতম হল…

4 ঘন্টা ago

রুপোর ১০টি নূপুর ডিজাইন নতুন ও ট্রাডিশনাল স্টাইলের

নূপুর আবার আজকাল কেউ পরে নাকি? বড্ড সেকেল! এরকম ভাবনা কয়েকদিন আগে অবধিও ছিল। কিন্তু…

5 ঘন্টা ago

মুড়ির দিয়ে গোলাপ জামুন বা লাল মোহনের রেসিপি

গোলাপ জামুন সাধারণ ছানা, মেওয়া কিংবা গুঁড়ো দুধ দিয়েই সকলে বানিয়ে থাকেন। এমনকি সুজি দিয়েও…

6 ঘন্টা ago

বকরি ঈদ স্পেশাল মাটন কলিজা বা লিভার মাসালা রেসিপি

যেকোনও উৎসব অনুষ্ঠানে বাড়িতে খাসির মাংসের বিভিন্ন পদ বানিয়ে থাকেন। কিন্তু আজ বকরি ইদ উপলক্ষে…

1 দিন ago

সর্বকালের সেরা দশটি বাংলা কমেডি মুভি যা এই সময় দেখা উচিত

লকডাউনে বাড়িতে বসে বসে ক্লান্ত। হয় ওয়ার্ক ফ্রম হোম, নয়তো ঘর গুছানো, রান্নাবান্না এইসব। কী…

1 দিন ago

শাড়ি ড্রেপিং স্টাইল দশ রকমের যা পরা খুবই সহজ

'বাইরে যাওয়ার অবস্থা নেই, আর আপনারা শাড়ি পরার নানা স্টাইল নিয়ে হাজির'। শিরোনাম পড়ে যারা…

2 দিন ago